পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে

  

আঞ্চলিক অফিসে গিয়ে পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে, অফিসের ভোগান্তিতর হাত থেকে বাঁচতে আমি আপনাদের জানাবো সঠিক উপায়ে এবং সঠিক তথ্য মতে আমাদের বাংলাদেশের পাসপোর্ট অধিদপ্তর ও ইমিগ্রেশনে বোর্ড এর সর্বশেষ নিয়মাবলীতে বিভিন্ন পেশার মানুষদের জন্য পাসপোর্ট এর কাগজপত্র কি কি লাগে ও  পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে নিচে উল্লেখ করা আছে সেগুলো বর্ণনা করা হলো।
পাসপোর্ট করতে কি কি
পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে এ সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকার কারণে নানাবিধ বিড়ম্বনায় শিকার হতে হয়। এছাড়া পাসপোর্ট করতে কত টাকা লাগে, কিভাবে টাকা জমা দিতে হয় সম্পূর্ণ আলোচনা করেছি বিস্তারিত জানতে আমাদের সাথেই থাকুন।

ভূমিকা

পাসপোর্ট মূলত দুই ধরনের হয়ে থাকে। ৪৮ পৃষ্ঠার বই এবং ৬৪ পৃষ্ঠার বই। এটি আন্তর্জাতিক ভ্রমনের সময় বাহকের জাতীয়তা ও পরিচয় প্রত্যয়িত করে। একটি পাসপোর্টে সাধারণত বাহকের নাম, জন্মের তারিখ ও স্থান, ছবি, স্বাক্ষর, এবং অন্যান্য চিহ্নিতকরণের তথ্য থাকে।

    পাসপোর্ট কি ও কেন দরকার

    আপনি যদি বৈধভাবে কোন দেশ ভ্রমণ করতে চান তাহলে আপনার সর্বপ্রথম যে জিনিসটা দরকার সেটা হচ্ছে পাসপোর্ট।পাসপোর্ট একজন নাগরিকের নাগরিকত্বের পরিচয় বহন করে। বিদেশ ভ্রমণ করার জন্য সর্বপ্রথম যে জরুরী জিনিসটা দরকার সেটি হচ্ছে পাসপোর্ট। পাসপোর্ট কে বিদেশ ভ্রমণের একমাত্র দলিল বলা হয়। পাসপোর্ট একটি ছোট বইয়ের মত দেখতে হলেও এর মধ্যে আমাদের দেশের সমস্ত তথ্য এবং আমার সম্পর্কে সমস্ত তথ্য হালনাগাদ করা থাকে। জন্মসূত্রে দেশের সরকার বাংলাদেশের নাগরিকদের পাসপোর্ট দিয়ে থাকেন।

    পাসপোর্ট এর জন্য কি কি কাগজপত্র সাথে করে নিয়ে যেতে হবে

    বয়স ১৮ কিংবা তার বেশি হলে ই পাসপোর্ট করতে জাতীয় পরিচয় পত্র নাগরিক সনদপত্র ও পেশাজীবী হলে তার প্রমান। বয়স ২০ কিংবা তার নিচে হলে অনলাইন জন্ম সনদপত্র সাথে করে নিয়ে যেতে হবে। এছাড়াও আপনার ই পাসপোর্ট আবেদনের সামারি, পাসপোর্ট আবেদনের ফরম, পাসপোর্ট ফ্রি, পরিষদের চালান/ব্যাংক ড্রাফ কপি, নাগরিক সনদ, পেশা ছাত্র/ছাত্রী হলে স্টুডেন্ট আইডি।
    ছবির ৬ এর ক খ গ

    পাসপোর্ট এর আবেদন ফ্রি কিভাবে জমা দিব

    পাসপোর্ট আবেদনের ফি আপনি মূলত দুইভাবে দিতে পারবেন 
    • ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে
    • অনলাইনের মাধ্যমে
    ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে -
    অর্থাৎ আপনি যদি পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে টাকা জমা দেন তাহলে উনারা আপনাকে যে কাগজ দিবে টাকা জমা দেওয়ার জন্য ওইটাকে ট্রেজারি চালান বলা হয়।
    অনলাইনের মাধ্যমে -
    অর্থাৎ আপনি যদি নিজে বা কম্পিউটারের দোকানে অনলাইনের মাধ্যমে পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করে থাকেন তাহলে আবেদন শেষে অনলাইন পেমেন্ট দেওয়ার অপশন থাকবে যেখানে বিকাশনগদ, ব্যাংক সবগুলো উল্লেখ থাকবে। আপনার কাছে অপশন থাকবে আপনি যে কোন একটি বেছে নিয়ে আপনার পেমেন্টটি সম্পন্ন করতে পারবেন। অনলাইন পেমেন্টের ক্ষেত্রে তারা কিছু ট্রানজেকশন ফি কেটে থাকে যা সর্বোচ্চ ৫ টাকা থেকে ১০ টাকা হতে পারে।

    মূল জাতীয় পরিচয় পত্র ছাড়া কিভাবে পাসপোর্ট করা যায়

    • পাসপোর্ট আবেদনের প্রিন্ট কপি।
    • ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন ।
    • বাবা এবং মায়ের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
    • পেশাগত যোগ্যতা প্রমাণের সনদ।
    • পাসপোর্ট এর টাকা জমা দেওয়ার রশিদ।
    • যদি পুরাতন পাসপোর্ট থাকে সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে।

    বিভিন্ন পেশার মানুষদের জন্য পাসপোর্ট এর কাগজপত্র কি কি লাগে

    আপনি যদি ছাত্র হন তাহলে আপনার যেগুলো কাগজপত্র লাগবে 
    • আপনার সর্বশেষ শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ।
    • আপনার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত সনদ।
    • আর আপনার প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড।
    আপনি যদি বেকার হন তাহলে যেগুলো কাগজপত্র লাগবে 
    • স্থানীয় চেয়ারম্যান বা কাউন্সিলর থেকে বেকারত্বের সনদ সংগ্রহ করতে হবে।
    আপনি যদি সরকারি চাকরি করেন তাহলে যেগুলো কাগজপত্র লাগবে 
    • GO অথবা NOC নিতে হবে
    • অবসরে গেলে পেনশন বই অথবা PRL Order

    পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে

    আপনি যদি বৈধভাবে কোন দেশ ভ্রমণ করতে চান তাহলে আপনার সর্বপ্রথম যে জিনিসটা দরকার সেটা হচ্ছে পাসপোর্ট। আসলে পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে পোস্ট সূচিপত্রঃ
    • জাতীয় পরিচয় পত্র।
    • পাসপোর্ট আবেদনের ফরম।
    • নাগরিক সনদ।
    • পরিষদের চালান/ব্যাংক ড্রাফ কপি।
    • পেশা ছাত্র/ছাত্রী হলে স্টুডেন্ট আইডি।
    • বিভিন্ন পেশার মানুষদের জন্য পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে ?

      পাসপোর্ট কি সংশোধন করা যায় গেলে কি কি লাগে 

      • যাদের বয়স ২০ বছরে কম তাদের জন্য জন্ম নিবন্ধন।
      • জাতীয় পরিচয় পত্র।
      • শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র (প্রয়োজন হলে)।
      • অঙ্গীকারনামা।
      • লিখিত আবেদন।
      • পুরাতন পাসপোর্ট ও তার ফটোকপি।
      • নতুন পাসপোর্ট আবেদন করতে যা যা লাগে তার সবই লাগবে। অতিরিক্ত ডকুমেন্ট হিসেবে পুরাতন পাসপোর্ট ও তার এক কপি ফটোকপি নিলেই হবে।

      প্রি পুলিশ ভেরিফিকেশন

      আপনি যদি সুপারন্যাচারাল পদ্ধতিতে আপনার পাসপোর্ট করতে চান অনেক কম সময়ে তাহলে আপনাকে আপনার আঞ্চলিক অফিসে পাসপোর্ট আবেদনের ফরম জমা দেওয়ার সময় প্রি পুলিশ ভেরিফিকেশন সংযুক্ত করতে হবে। আগে থেকে আপনার যদি পুলিশ ভেরিফিকেশন হয়ে থাকে তাহলে আপনার আবেদনের সময় ত্বরান্বিত করে। ধন্যবাদ।

      পাঠকের মতামত

      সম্মানিত পাঠকগণ, এতক্ষণে নিশ্চয়ই পোস্টটি পড়ে আপনারা জেনে গেছেন পাসপোর্ট করতে কি কি কাগজ লাগে। পোস্টটি আপনার উপকারে আসলে এখনই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। এছাড়াও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে আর্টিকেল পড়তে আমাদের সাথেই থাকুন। সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
      Next Post
      No Comment
      Add Comment
      comment url